ডেস্ক নিউজঃ চলমান পরীক্ষা স্থগিতের প্রতিবাদ ও হল খোলার দাবিতে আজও নীলক্ষেত সড়ক অবরোধ করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অধিভুক্ত রাজধানীর সাত সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীরা। বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান নিয়েছে তারা।

আজ বুধবার সকাল ৯টা থেকে শিক্ষার্থীরা অবরোধ কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন।

এতে করে বন্ধ রয়েছে আজিমপুর থেকে সায়েন্সল্যাব মোড় পর্যন্ত সব ধরনের যান চলাচল। ফলে চরম বিপাকে পড়েছেন এ পথের সাধারণ যাত্রীরা। অনেকে হেটে গন্তব্যে ছুটছেন।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, ‘বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের খামখেয়ালি মনোভাবের বহিঃপ্রকাশ এই সিদ্ধান্ত। অচিরেই পরীক্ষার স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করা না হলে আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।’

তারা বলেন, ‘আমাদের একটা মাত্র পরীক্ষা আছে। এখন বলছে পরীক্ষা হবে না। এতদিন কি করোনা ছিল না? আমাদের এই একটা পরীক্ষা শেষ হলে চাকরির পরীক্ষায় অংশ নিতে পারব আমরা। এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানাই। আমাদের পরীক্ষা অবশ্যই নিতে হবে।’

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় একই দাবিতে নীলক্ষেত মোড়ে প্রথমে মানববন্ধন করেন শিক্ষার্থীরা। পরে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন তারা। এর আগে একই দিন সন্ধ্যায় সাত সরকারি কলেজের পরীক্ষা স্থগিত করা হয়। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির ঘোষণার একদিন পর মঙ্গলবার এ সিদ্ধান্ত আসে।

এর আগে বিকাল ৩টায় এ বিষয়ে সাত কলেজের অধ্যক্ষ ও সংশ্লিষ্ট তিন ডিন বৈঠক করেন। সাত কলেজের প্রধান সমন্বয়ক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহউপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক এএসএস মাকসুদ কামালের নেতৃত্বে ওই বৈঠকটি হয়। সেখানেই পরীক্ষা স্থগিতের সিদ্ধান্ত হয়।

এর আগে সোমবার অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানান, ২৪ মে থেকে দেশের সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস শুরু হবে। আর ১৭ মে আবাসিক হলগুলো খুলবে।

Sharing is caring!