মাজহারুল ইসলাম, শেরপুর জেলা প্রতিনিধিঃ শেরপুরের শ্রীবরদী পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে বিএনপি ও আওয়ামীলীগের মেয়র প্রার্থী পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন করেছে। বৃহস্পতিবার (১১ ফ্রেব্রুয়ারি) সকালে বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী আব্দুল হাকিম তার নিজ বাসভবনে এক সংবাদ সম্মেলন করেন। এতে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, নির্বাচনে ছাত্রলীগ, যুবলীগ নেতাকর্মীদের হুমকি, আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর দমন পীরনের জন্য আমি ও আমার দলের সমর্থকরা নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা করতে বাঁধার সম্মুখিন হচ্ছি। সরকারি দলীয় প্রার্থী প্রশাসনিক ক্ষমতা প্রয়োগ করে বাড়ি বাড়ি গিয়ে আমার নেতাকর্মীদের ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করছে। গত ০৩ ফেব্রæয়ারী পোড়াগড় বাজারে উদ্দেশ্যমূলকভাবে নিজেরাই নৌকা প্রতীকের তোরণে অগ্নিসংযোগ করে বিএনপি ও অংগসংগঠনের ২৪ জন নেতাকর্মীর নামে মিথ্যা মামলা দায়ের করে। এ ঘটনায় উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক রাজু আহাম্মেদ, শ্রমিকদলের সদস্য সচিব ফজলুল করিম লাকি ও সদস্য আহাম্মদ আলীকে গ্রেফতার করেছে। এছড়াও গতকাল বিভিন্ন ওয়ার্ডে নৌকা প্রতীকের তোরণ ও মোটর সাইকেল পুড়িয়ে বিএনপি কর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা দেওয়ার পায়তারা করছে। এ সময় তিনি ভোট গ্রহণের পূর্বেই নির্বাচনের সুষ্ঠ পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রশাসনের প্রতি জোড় দাবী জানান। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সাবেক এমপি ও জেলা বিএনপির সভাপতি মাহমুদুল হক রুবেল, উপজেলা বিএনপি’র আহŸায়ক আব্দুর রহিম দুলাল, যুগ্ম আহŸায়ক আব্দুল্লাহ আল মামুন দুলাল, জেলা জামায়াতের নায়েবে আমীর নুরুজ্জামান বাদল প্রমুখ।
অপরদিকে আ’লীগ মনোনীত প্রার্থী মোহাম্মদ আলী লাল মিয়া ককটেল বিস্ফোরণ, মোটর সাইকেল পোড়ানো ও নেতাকর্মীদের আটকে রেখে মারধরের অভিযোগ তুলে একই দিন দুপুরে নিজ নির্বাচনী কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, বিএনপি মনোনিত প্রার্থী আব্দুল হাকিম ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হাবিবুল্লাহ হাবি আমার নেতাকর্মীদের উপর হামলা, মোটরসাইকেল ও নৌকা প্রতীকের তোরণে অগ্নিসংযোগ করে ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে। আমার নেতাকর্মীরা নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘন করে নাই। আমার বিশ্বাস নির্বাচনে সুষ্ঠ পরিবেশ বজায় থাকবে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল্লাহ ছালেহ, জেলা কৃষক লীগের সভাপতি আব্দুল কাদির, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক ফেরদৌস আলী প্রমূখ। এতে জেলা ও উপজেলার গণমাধ্যমকর্মীরা অংশ গ্রহণ করেন।

Sharing is caring!