ঢাকার যাত্রাবাড়ী, মতিঝিল ও কেরাণীগঞ্জে র‌্যাবের পৃথক পৃথক অভিযানে ২২ জুয়াড়ি গ্রেপ্তার।

র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকেই দেশের সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সমুন্নত রাখার লক্ষ্যে সব ধরণের অপরাধীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। র‌্যাব নিয়মিত জঙ্গী, সন্ত্রাসী, সংঘবদ্ধ অপরাধী, অস্ত্রধারী অপরাধী, মাদক, ছিনতাইকারীসহ কেসিনোর (জুয়াড়ি) বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে আসছে।

এরই ধারাবাহিকতায় গত ৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১ খ্রিঃ তারিখ অনুমান ১৬.০৫ ঘটিকার সময় র‌্যাব-১০ এর একটি আভিযানিক দল রাজধানী ঢাকার যাত্রাবাড়ী থানাধীন দক্ষিণ সায়েদাবাদ এলাকায় একটি অভিযান পরিচালনা করে জুয়ার আসর হতে জুয়া খেলা অবস্থায় ১১ জন জুয়াড়িকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তিদের নাম ১। মোঃ মানিক (২৫), ২। হোসেন আলী (৩০), ৩। সুমন মিয়া (৩৩), ৪। ইব্রাহীম বাবু (২৫), ৫। মোঃ দুলাল হোসেন (৫০), ৬। মাসুদ (৩৩), ৭। ইয়াকুব (৩০), ৮। শাহীদ (৩৩), ৯। রেজাউল (২৬), ১০। রবিউল আলম (৩৭) ও ১১। মোঃ রাজু (৩২) বলে জানা যায়। এসময় তাদের নিকট থেকে খোলা অবস্থায় ১৫৬ জুয়া খেলার কার্ড (তাস), ২টি মোবাইল ফোন ও নগদ ৩,৪৩০/- টাকা উদ্ধার করা হয়।

এছাড়া একই তারিখ অনুমান ২০.১৫ ঘটিকার সময় র‌্যাব-১০ এর অপর একটি আভিযানিক দল রাজধানী ঢাকার মতিঝিল থানাধীন ১২৬/৫ , ৪র্থ গলি এলাকায় অপর একটি অভিযান পরিচালনা করে জুয়ার আসর হতে জুয়া খেলা অবস্থায় ০৩ জন জুয়াড়িকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তিদের নাম মোঃ রেজাউল করিম রুবেল (৩৯), ২। হাবিবুর রহমান (৪৫) ও ৩। মোঃ খলিল (৩৮) বলে জানা যায়। এসময় তাদের নিকট থেকে ৩ সেট জুয়া খেলার কার্ড (তাস), ২টি মোবাইল ফোন ও নগদ ২২০০/- টাকা উদ্ধার করা হয়।

এছাড়াও একই তারিখ অনুমান ২৩:৩০ ঘটিকার সময় র‌্যাব-১০ এর অপর একটি আভিযানিক দল ঢাকা জেলার কেরাণীগঞ্জ মডেল থানাধীন ভাগনা মসজিদ রোড এলাকায় অপর একটি অভিযান পরিচালনা করে জুয়ার আসর হতে জুয়া খেলা অবস্থায় ০৮ জন জুয়াড়িকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তিদের নাম ১। মোঃ রবিন হোসেন (২২), ২। সৌরভ সরকার (২১), ৩। মোঃ আশিক হোসেন (২১), ৪। মোঃ আলিফ (২২), ৫। মোঃ আশিকুর রহমান (২২), ৬। মোঃ সিফাত ঢালী (২২), ৭। মোঃ রফিকুল ইসলাম রনি (২০) ও ৮। মোঃ রাসেল ফকির (২৪) বলে জানা যায়। এসময় তাদের নিকট থেকে ০৪ সেট জুয়া খেলার কার্ড (তাস), ০১টি বেড শীড, ০৭টি মোবাইল ফোন ও নগদ ২,৯৯৫/- টাকা উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তিরা পেশাদার জুয়াড়ি। তারা দীর্ঘদিন যাবৎ একে অন্যের সাথে জুয়া খেলে সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে এবং জুয়া খেলার মাধ্যমে নিজেদের সর্বস্ব হারাচ্ছে।

গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা রুজু করা হয়েছে।

Sharing is caring!