করোনায় আক্রান্ত যুক্তরাজ্য ফেরত ২৮ জন প্রবাসীকে সরকারি ব্যবস্থাপনায় কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে। সিলেটের খাদিমপাড়াস্থ ৩১ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের শারীরিক পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছেন চিকিৎসকরা।

সিলেট স্বাস্থ্যবিভাগ জানায়, গত ২১ জানুয়ারি যুক্তরাজ্য থেকে দেশে আসেন ১৫৭ জন প্রবাসী। তাদেরকে সেনাবাহিনী ও পুলিশের তত্ত্বাবধানে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে বিভিন্ন হোটেলে রাখা হয়। পরে সোমবার তাদেরকে ছেড়ে দিতে দ্বিতীয় দফা নমুনা পরীক্ষা করা হলে ২৮ জনের ফল পজিটিভ আসে। যা নিয়ে ব্রিটেনের বাংলাদেশি কমিউনিটিতে আলোচনা এখন তুঙ্গে। এ ঘটনায় কমিউনিটি জুড়ে বেড়েছে উদ্বেগ ও আতঙ্ক।

তবে, বিমান বাংলাদেশ’র লন্ডন অফিসের দাবি কোন যাত্রী করোনা ভাইরাসের পিসিআর টেষ্ট ছাড়া বিমানে বোর্ডিং করেনি। তাহলে, কিভাবে এতো যাত্রীর শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেলো -সেটি নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

ধারণা করা হচ্ছে, যাত্রীদের মাঝে একজনের সার্টিফিকেট অন্যজনের নাম বদলিয়ে ব্যবহার করেছে, যে কারণে কোয়ারেন্টিন থাকা অবস্থাতেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে হতে পারেন অনেকে। এ বিষয়ে সতর্ক করেন ব্রিটেনের স্বাস্থ্যবিভাগে কর্মরত বাংলাদেশি খসরুজজামান।

তবে, ভুয়া করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট নিয়ে কেউ লন্ডন থেকে উড্ডয়ন করলেও সেটি শনাক্ত করার কোন উপায় বিমান কর্তৃপক্ষের নেই বলে জানান লন্ডনস্থ বাংলাদেশ বিমানের সহকারী স্টেশন ম্যানেজার নজরুল ইসলাম।

বাংলাদেশি মালিকানাধীন ট্রাভেল ব্যবসায়ীরাও এই ঘটনায় বেশ বিব্রত হলেও ঘটনাটি নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন তারা।

বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন লন্ডনস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম। বিমান বাংলাদেশের লন্ডন অফিসের সাথে বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন বলেও তিনি জানান।

Sharing is caring!