আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন,সকল ভালো কাজের মাধ্যমে দেশের জনগণের মন জয় করে সাধারণ মানুষের আস্থার স্থান আছে আওয়ামী লীগ।

বৃহস্পতিবার ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অসহায় দুস্ত মানুষের মাঝে শীত বস্তু বিতরনের আগে তার সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে যুক্ত হয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন,শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অবিরাম ভাবে দেশের উন্নয়ন হচ্ছে। এখন দেশের জনগণ তার সুফল ভোগ করছে। এদেশে একমাত্র আওয়ামী লীগই সাধারণ মানুষের আস্থার স্থানে আছে। দেশের সকল দুর্যোগে একমাত্র আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরাই মানুষের পাশে দাড়ায়। এটা হলো আওয়ামী লীগের ঐতিহ্য যা অন্য কোনো দলের নেই।

তিনি বলেন, সকল দুর্যোগ মোকাবেলায় আওয়ামী লীগ মানুষের পাশে থাকে। অসহায়, দুস্ত গৃহহীন মানুষ পাশে সবসময় থাকার কারণেই আওয়ামী লীগ দেশের মানুষের কাছে এতো জনপ্রিয়। সকল ভালো কাজের মাধ্যমে দেশের জনগণের মন জয় করেছে আওয়ামী লীগ। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মানবিক সমাজ গড়ার জন্য নেতাকর্মীদের কাজ করতে হবে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, দেশের মানুষ বিএনপিকে প্রত্যাখান করেছে। তাই বিএনপির রাজনীতি এখন রিএক্যাটিভ। বিএনপি ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র শুরু করছে। দেশের মানুষ তাদেরকে ক্ষমতায় যাওয়ার সুযোগ দেবে না।

ওবায়দুল কাদের বলেন,
ধর্মের দোহাই দিয়ে সাম্প্রদায়িকতার বিষ ছাড়ানোর সুযোগ নেই। তাদের বিরুদ্ধে দেশের মানুষ জেগে ওঠেছে। বিএনপির কোনো ভালো কাজ না থাকায় জনগনের কাছে যাওয়ার সুযোগ নেই। তাই বিএনপির এখন
গুজব অপপ্রচার লিপ্ত। তারা গুজব পার্টিতে পরিণত হয়েছে।
বিএনপির দৃষ্টি শক্তিতে ঘন কুয়াশা জমেছে। তারা নিজেরাই শীতে কাতর হয়ে গেছে মানুষকে কিভাবে সাহায্য করবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, পৌরসভার নির্বাচনে যারা আওয়ামী লীগের প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন তাদেরকে ভবিষ্যতে মনোনয়ন দেয়া হবে না। দলের সুমান ক্ষুণ্ণ হয় এমন আচরণ ও বক্তব্য থেকে বিরত থাকার অনুরোধ করেন তিনি।

থানার পর্যায়ের কমিটির করার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন,থানা পর্যায়ে কমিটির করতে হবে। ত্যাগীদের এই কমিটিতে জায়গা করে দিতে হবে। পকেট ভারি কমিটির করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমদে মন্নাফি সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন মহি, কাজী মোর্শেদ কামালসহ অনেকেই।

Sharing is caring!