ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মোঃ ফরিদুল হক খান, এমপি বলেছেন, দেশপ্রেমিক ও যোগ্য নাগরিক হতে হলে সকলকে বাংলাদেশের সঠিক ইতিহাস জানতে হবে। বাংলাদেশকে জানতে হলে বঙ্গবন্ধুকে জানতে হবে।কারণ বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ এক অবিচ্ছেদ্য বিষয়।

আজ (শনিবার) সকাল ১০.৩০ মি.এ ইসলামপুর উচ্চবিদ্যালয় মাঠে মুজিবশতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, ইসলামপুর উপজেলা শাখা আয়োজিত বিভিন্ন, সংগঠন, শিক্ষক -শিক্ষার্থীদের মাঝে ‘ অসমাপ্ত আত্মজীবনী- শেখ মুজিবুর রহমান’ ও ‘বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি-আতিউর রহমান’ বই বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান হিসেবে বক্তব্য রাখেন.

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আগামী প্রজন্মের কাছে
বঙ্গবন্ধুর আদর্শ তুলে ধরতে হলে আগে নিজেরা বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্ম, দেশের জন্য তঁঁার আত্মত্যাগ, তঁার নৈতিকতা ও সততা, মানুষের জন্য তঁার অগাধ ভালোবাসার কথা জানতে হবে। সে লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধুর নিজের লিখিত ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর অধ্যাপক ড. আতিউর রহমান লিখিত ‘বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি’ বঙ্গবন্ধুকে জানার ক্ষেত্রে বিশেষভাবে সহায়ক হবে।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষে বঙ্গবন্ধুকে ভালোভাবে জানার জন্য শিক্ষক শিক্ষার্থী সহ সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের মাঝে এ-সব বই ছড়িয়ে দিতে হবে। বিশেষ করে শিক্ষার্থীদেরকে নিয়ে নিয়মিতভাবে এসব বই পড়ার পাঠচক্র ও প্রতিযোগিতার আয়োজন করতে হবে। এর মাধ্যমেে আগামী প্রজন্ম মাননীয়়় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ২০৪১ সালের উন্নত বাংলাদেশ গড়ার অভিযাত্রায় সঠিকভাবে অবদান রাখতে পারবে এবং বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা পাবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. এ এইচ এম মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, বঙ্গবন্ধু তাঁর রাজনৈতিক জীবনে তঁার পিতার দেয়া উপদেশ ‘সিনসিয়ারিটি অফ পারপাস’ এবং অনেস্টি অফ পারপাস’ অনুসরণ করেছিলেন।
বঙ্গবন্ধু সারাটি জীবন চেয়েছিলেন’ একটি মানবিক দেশ গঠন করার জন্য যেখানে মানুষ তার যথাযথ সম্মান পাবে। কোন প্রকার বৈষম্য থাকবেনা। ধর্ম-বর্ণ শ্রেণি-পেশা নির্বিশেষে সকলের মানবিক অধিকার নিশ্চিত করার জন্য তিনি আজীবন লড়াই করে গেছেন। বাংলাদেশ নামের একটি স্বাধীন দেশ আমাদেরকে উপহার দিয়ে গেছেন। তাই বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করে আমরা দেশকে একটি মানবিক দেশ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য বঙ্গবন্ধুকে আরো বেশি পড়তে হবে, জানতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জামালপুর সরকারি আশেক মাহমুদ কলেজ এর অধ্যক্ষ কবি ও গবেষক অধ্যাপক ডক্টর মুজাহিদ বিল্লাহ ফারুকী বলেন, বঙ্গবন্ধু কখনো অন্যায়ের সাথে আপোষ করেননি। সাহস এর অপর নাম বঙ্গবন্ধু। তাই সমাজে যারা এখনো অন্যায় অপরাধ করছে তাদের প্রতিহত করতে হলে বঙ্গবন্ধুকে ভালোভাবে জানতে হবে এবং তিনি যে পদ্ধতিতে অন্যায়ের প্রতিবাদ করেছেন সে সে পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে।

অনুষ্ঠানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. এবিএম আবদুল্লাহ মোবাইল ফোনে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন । এছাড়া বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর অধ্যাপক ড.আতিউর রহমান বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষে ইসলামপুর আওয়ামী লীগ আয়োজিত বই বিতরণ অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বাণী প্রদান করেন।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, ইসলামপুর উপজেলা শাখার সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ আব্দুল লতিফ সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় আরো বক্তব্য রাখেন ইসলামপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ সুলতান সালাউদ্দিন, জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক সাবিনা ইয়াসমিন, ইসলামপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জামাল আব্দুল নাসের বাবুল, ইসলামপুর উপজেলা নির্বাহি অফিসার এস এম মাজহারুল ইসলাম, ইসলামপুর আব্দুস সামাদ পারভেজ মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ ও ইসলামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জামাল আব্দুন নাসের চারলেস চৌধুরী, ইসলামপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আরিফা বেগম ইসলামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুস সালাম প্রমূখ।

Sharing is caring!