ডেস্ক নিউজঃ প্রথম ইনিংসের মতো বক্সিং-ডে টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসেও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দাপট দেখালো ভারতের বোলাররা। নবাগত সিরাজ ও অশ্বিনদের দাপটে খুব বেশি রান যোগ করতে পারেনি স্বাগতিকরা। অস্ট্রেলিয়ার দ্বিতীয় ইনিংস শেষ হয় মাত্র ২০০ রানেই। যাতে ৬৯ রানের লিড নেয় অজিরা। যা মাত্র ২ উইকেট হারিয়েই টপকে যায় রাহানের ভারত।

মেলবোর্নের এই দুরন্ত জয়ে সিরিজে সমতা ফেরাল রাহানের দল। খাদের কিনারা থেকে একেবারে জয়ের সরণীতে। ভারত-অস্ট্রেলিয়ার শততম টেস্ট জিতে নিল রাহানের টিম ইন্ডিয়া। মেলবোর্নে মাইলস্টোন ম্যাচ জিতে চার টেস্টের সিরিজ ১-১ সমতায় আনলো রাহানের দল। কথায় আছে- শেষ ভালো যার, সব ভালো তার। বছরের শেষ টেস্ট জিতে দেশবাসীকে নিউ ইয়ার গিফট দিল রাহানের নেতৃতাধীন টিম ইন্ডিয়া।

সোমবার তৃতীয়দিনেই জয়ের গন্ধ পেয়ে গিয়েছিল টিম ইন্ডিয়া। ‘তবে’, ‘যদি’, ‘কিন্তু’ এই শব্দগুলো অবশ্য ঘুরপাক খাচ্ছিল, কারণ একটাই- সপ্তাহখানেক আগেই যে অ্যাডিলেডে লজ্জাজনক ইতিহাস লিখেছিল তথাকথিত তারকাখচিত ভারতীয় ব্যাটিং লাইনআপ। মাত্র ৩৬ রানের লজ্জায় ডুবেছিল কোহলিরা।

সোমবার তৃতীয় দিনের খেলার শেষে অস্ট্রেলিয়ার রান ছিল ১৩৩। হাতে থাকা ৪ উইকেট নিয়ে তারা যোগ করে ৬৭ রান। এদিন অপরাজিত থাকা ক্যামেরন গ্রিন (১৪৬ বলে ৪৫ রান) এবং প্যাট কামিন্স (১০৩ বলে ২২ রান) আউট হওয়ার পর মিচেল স্টার্ক (৫৬ বলে ১৪ রান) এবং জশ হ্যাজেলউড (২১ বলে ১০ রান) চেষ্টা করলেও খুব বেশি এগোতে দেননি মোহাম্মদ সিরাজরা।

অভিষেক ম্যাচে ২ ইনিংস মিলিয়ে সিরাজ নিলেন ৫ উইকেট। মোহাম্মদ শামির অনুপস্থিতি বুঝতেই দেননি এই তরুণ। তবে মঙ্গলবার প্রথম উইকেটটা নিলেন যদিও যশপ্রীত বুমরা। অস্ট্রেলিয়ার শেষ উইকেটটি নেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন।

আজ মঙ্গলবার মাত্র ৭০ রানের লক্ষ্যে নেমে শুরুতেই মায়াঙ্ক আগারওয়াল (৫) ও চেতেশ্বর পুজারাকে (৩) হারালেও ৮ উইকেটের বড় জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে সফরকারীরা। ওপেনার শুবমান গিল ৩৬ বলে ৩৫ করে এবং সঙ্গী ভারপ্রাপ্ত ক্যাপ্টেন আজিঙ্কা রাহানে ৪০ বলে ২৭ রানে অপরাজিত থেকে দলের জয় নিশ্চিত করেন।

আর এই জয়ের ফলে চার টেস্টের সিরিজ বর্তমানে ১-১ সমতায়। উল্লেখ্য, প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ৩৬ রানে গুটিয়ে যাওয়া ভারতকে একই ব্যবধানে (৮ উইকেটে) হারিয়েছিল অজিরা।

এর আগে মেলবোর্নে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৩২৬ রান করে ভারত। ফলে প্রথম ইনিংসে ১৩১ রানের লিড পায় টিম ইন্ডিয়া। প্রথম ইনিংসে ১৯৫ রানে অলআউট হয়েছিলো অজিরা।

জবাবে দ্বিতীয় দিনের শেষে প্রথম ইনিংসে ভারত তুলেছিল ৫ উইকেট হারিয়ে ২৭৭ রান। তৃতীয় দিনে খেলতে নেমে রবীন্দ্র জাদেজা হাফ সেঞ্চুরি করেন। তবে ১১২ রান করে রান আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান রাহানে। জাদেজাও ফিরলেন ৫৭ রানে। রাহানে-জাদেজা আউট হতেই ৩২৬ রানে শেষ ভারতের প্রথম ইনিংস। ১৩১ রানের লিড নিয়ে নেয় টিম ইন্ডিয়া।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই জো বার্নসকে ফেরালেন উমেশ যাদব। কিন্তু এর পরেই চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন ভারতীয় পেসার। মার্নাস লাবুশানেকে ২৮ রানে ফেরালেন অশ্বিন। অফ ফর্মে থাকা স্টিভ স্মিথকে ৮ রানে ফেরালেন জশপ্রীত বুমরাহ। এরপর নিয়মিত ব্যবধানে উইকেট হারাতে থাকে অস্ট্রেলিয়া।

ট্রাভিস হেড ১৭, ম্যাথু ওয়েড ৪০ আর অজি অধিনায়ক টিম পেইন ১ রান করেন। ৯৯ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা অস্ট্রেলিয়াকে ইনিংস হারের হাত থেকে বাঁচালেন ক্যামেরন গ্রিন এবং প্যাট কামিন্সের পার্টনারশিপ। কামিন্স ১৭ এবং গ্রিন ১৫ রানে অপরাজিত রয়েছে। তৃতীয় দিনের শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে অস্ট্রেলিয়ার রান ১৩৩/৬। ভারতের থেকে মাত্র ২ রানে এগিয়ে অস্ট্রেলিয়া।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (টস –অস্ট্রেলিয়া):
অস্ট্রেলিয়া: ১৯৫ ও ২০০, ১০৩.১ ওভার (গ্রিন ৪৫, ওয়েড ৪০, লাবুশেন ২৮, জাদেজা ২/২৫)।
ভারত: ৩২৬ ও ৭০/২, ১৫.৫ ওভার (গিল ৩৫, রাহানে ২৭, কামিন্স ১/২২)।
ফল: ভারত ৮ উইকেটে জয়ী।
ম্যাচ সেরা: আজিঙ্কা রাহানে (ভারত)।

Sharing is caring!