‘বিশ্বে এখন চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের কথা আসছে। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে দক্ষ কর্মীরা সুযোগ পাবেন। ফ্রিল্যান্সার আইডি কার্ড দেয়ার জন্য একটা ওয়েব পোর্টাল তৈরি করা হয়েছে। সেখান থেকে ফ্রিল্যান্সার রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করে আইডি কার্ড সংগ্রহ করতে পারবেন। এতে ফ্রিল্যান্সারদের সামাজিক পরিচিতি তৈরির পাশপাশি ব্যাংক ঋণ পেতে পারবে এবং তাদের ক্ষমতায়নে সহযোগিতা করতে পারবে।’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) আইন ও প্রশাসন প্রশিক্ষণ কোর্সের সমাপনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে অনুষ্ঠানে ভার্চ্যুয়ালি যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী। ৫ মাসব্যাপী এই প্রশিক্ষণে অংশ নেন ১১৬ জন। আয়োজনের শুরুতেই ভালো ফল অর্জন করায় প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে সনদ প্রদান করেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

এসময় সরকার প্রধান জানান, সরকারের পরিকল্পনাতে করোনার বিপর্যস্ত বিশ্বেও, অর্থনৈতিক উন্নয়ন ধরে রেখেছে বাংলাদেশ। এ কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। করোনার সংক্রমণ রোধে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২১ বছর পর ৯৬ এ ক্ষমতায় এসে দেশকে উন্নয়নের পথে নেয়ার মহাপরিকল্পনা নেয়া হয়। বলা যায়, নেই সময়টি উন্নয়নে স্বর্ণযুগ। এরপরে কিছুটা ছেদ পরে। পরবর্তীতে আবারো ক্ষমতায় এসে টানা তিন মেয়াদে দেশ পরিচালনার সুযোগ হয় আওয়ামী লীগের। ফলে উন্নয়নের ধারাবাহিকতাও চালিয়ে নেয়া সম্ভব হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, করোনার কারণে বিশ্বের অনেক ধনীদেশেই প্রবৃদ্ধি শূন্যের কোঠায় নেমে আসে। সেখানে বাংলাদেশ ৫.৪ এ প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে। এর কারণ উন্নয়ন ধরে রাখতে প্রয়োজনীয় সবকিছুই সরকার করেছে। এ জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

এদেশে মানুষের জীবনমান উন্নয়নে এবং প্রশাসনের সুশাসন বজায় রাখতে সরকারী কর্মকর্তাদের সতর্ক থাকারও আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

Sharing is caring!