বিএনপির নেতা মীর মোহাম্মদ নাসির উদ্দিনের ছেলে মীর মোহম্মদ হেলালকে অবৈধ সম্পদ অর্জনের একটি মামলায় কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) ঢাকার ২ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক এএমএম রুহুল ইমরানের আদালতে আইনজীবীর মাধ্যমে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে তা নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

বিচারিক আদালত থেকে ৩ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত মীর হোলালের দণ্ড আপিল বিভাগে বহাল রাখে। আজ তিনি আত্মসমর্পণ করে জামিনের প্রার্থনা করেছিলেন। যা আদালত নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।

আদালত সুত্রে জানা যায়, অবৈধ সম্পদ অর্জন এবং সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগে ২০০৭ সালের ৬ মার্চ মীর নাসির ও তার ছেলে মীর হেলালের বিরুদ্ধে গুলশান থানায় মামলা দায়ের করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

মামলায় বিচার শেষে একই বছরের ৪ জুলাই ঢাকার ২ নম্বর বিশেষ জজ মীর নাসির উদ্দিনকে ১০ বছরের দণ্ড দেন। একইসঙ্গে ৫০ লাখ টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে দুই বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দেন। আর তার ছেলে মীর হেলালকে তিন বছরের কারাদণ্ড এবং এক লাখ টাকার অর্থদণ্ড দেন। ওই রায়ের বিরুদ্ধে পিতা ও পুত্র হাইকোর্টে পৃথক আপিল করেন।

২০১০ সালের ১০ আগস্ট হাইকোর্ট মীর নাসিরের এবং একই বছরের ২ আগস্ট মীর হেলালের সাজা বাতিল করে রায় দেন। এরপর হাইকোর্টের ওই রায় বাতিল চেয়ে আপিল আবেদন করে দুদক। ২০১৪ সালের ৪ জুলাই আপিল বিভাগ হাইকোর্টের রায় বাতিল করে হাইকোর্টকে পুনরায় আপিল শুনানির নির্দেশ দেন।

পুনরায় আপিল শুনানি শেষে ২০১৯ সালের ১৯ নভেম্বর হাইকোর্ট বিচারিক আদালতের রায় বহাল রেখে রায় দেন। একই সঙ্গে রায় প্রদানকারী বিচারিক আদালতে রায় পৌঁছানোর তিন মাসের মধ্যে আসামিদের আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেন।

Sharing is caring!