রাজশাহীতে আবাসিক হোটেলে জুয়া খেলার অপরাধে পুলিশের আট সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে মহানগর পুলিশের (আরএমপি) ছয়জন ও জেলা পুলিশের দুইজন।

বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় রাজশাহী মহানগর পুলিশ ও জেলা পুলিশের পৃথক আদেশে বরখাস্ত করে তাদের পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়। এছাড়াও মাদক সেবনের সন্দেহে তাদের ডোপ টেস্ট করা হবে বলে পুলিশের কর্মকর্তারা জানিয়েছে।

সাময়িক বরখাস্ত হওয়া আরএমপি ছয়জন হলেন, এএসআই আবদুল বারেক, মিজানুর রহমান, নায়েক আফজাল সরকার, কনস্টেবল ফরহাদ হোসেন, আবদুস সালাম ও সাহেদ আলী। আর জেলা পুলিশের কনস্টেবল রফিকুল ইসলাম ও বিপুল। তারা সবাই পুলিশ লাইনে কর্মরত ছিলেন।

তাদের বরখাস্তের দাপ্তরিক আদেশে বলা হয়েছে, এসব পুলিশ সদস্য গত বুধবার দিবাগত রাতে নগরের শেখপাড়া এলাকায় একটি আবাসিক হোটেলের দোতলায় টাকা দিয়ে তাস দিয়ে জুয়া খেলছিলেন। খবর পেয়ে রাত ১টা ২২মিনিটে বোয়ালিয়া থানার এসআই মাসুদ রানা সেখানে যান। বিষয়টি তিনি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানান। পরে তাদের পুলিশি জিম্মায় নেওয়া হয়।

রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার গোলাম রুহুল কুদ্দুস জানান, ‘এসব পুলিশ সদস্যের এমন কার্যকলাপ বিভাগীয় শৃঙ্খলার পরিপন্থী ও অসদাচরণের শামিল। তাই তাদের চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। মাদকসেবন সন্দেহে তাদের ডোপ টেস্ট করানো হবে।’

এছাড়াও জেলা পুলিশের মুখপাত্র ও জ্যেষ্ঠ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইফতে খায়ের আলম জেলার দুই সদস্যকে সাময়িক বরখাস্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

Sharing is caring!