এইচ এম আবেদুজ্জামান জিহাদঃ “ভাস্কর্য সংস্কৃতির অংশ। আমাদের দেশে আগে থেকেই আরো অনেক ভাস্কর্য রয়েছে। সারা বিশ্বে বিভিন্ন মুসলিম দেশগুলোতে অনেক ভাস্কর্য রয়েছে। অনেক মুসলিম চিন্তাবিদদের ভাস্কর্য রয়েছে বিশ্বজুড়ে।আল- বিরুনী, ইবনে সিনা এদের ভাস্কর্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশে স্থাপন করা হয়েছে। ” ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ আয়োজিত দ্বিতীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় প্রধান অতিথি এর বক্তব্যে এসব কথা বলেন মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি। আজ ০৫ জানুয়ারি ২০২১ রোজ মঙ্গলবার ধানমন্ডির হোয়াইট হল কনভেনশন সেন্টারে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ এর সভাপতি শেখ বজলুর রহমান এবং সঞ্চালনা করেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদক এস এম মান্নান কচি।
তিনি আরো বলেন,” ভাস্কর্য পূজার জন্য নয়। স্মৃতি ধারনের জিনিস। বঙ্গবন্ধু এ দেশকে স্বাধীন করেছেন। তিনি জাতির পিতা। তিনি যাতে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে স্মৃতি হিসেবে ধারণ থাকে তার জন্য এই ভাস্কর্য। ”
ভাষ্কর্য ভাংচুর করা আইনত অপরাধ। তিনি দেশের জনগণের প্রতি আহবান জানান যাতে কেও আইন হাতে তুলে না নেয়। এ বিষয়ে তিনি বলেন,”আইন হাতে তুলে নেবেন না। যে বা যারা এই ধরনের ভাস্কর্য ভাঙচুরের সাথে জড়িত থাকবে তাদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। বাংলাদেশের মানুষ অনেক উদার এবং সংস্কৃতিমনা। তারা ভাষ্কর্য ভাংচুর এর সাথে জড়িত থাকতে পারে বলে আমার মনে হয় না। এগুলো একদল চিহ্নিত ষড়যন্ত্রকারী এবং বিচ্ছিন্নবাদী লোকেদের প্রয়াস বলে আমি মনে করি।”
এ সভায় ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ এর কার্যনির্বাহী কমিটির সকল সদস্য উপস্থিত ছিলেন। সভাপতি এর বক্তব্যে শেখ বজলুর রহমান থানা এবং ওয়ার্ড কমিটিগুলো তে তৃণমুল থেকে উঠে আসা সৎ,যোগ্য এবং ত্যাগী নেতারাই স্থান পাবে বলে জানান। ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদক এস এম মান্নান কচি জানান, “দলে কোন বিএনপি-জামায়াত এর এজেন্ডা বাস্তবায়নকারী, হাইব্রিড এবং সুবিধাভোগীদের স্থান দেওয়া হবে না।”

Sharing is caring!