দেশের সবচেয়ে প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।‘নিজেকে জানো’ মূলমন্ত্র ধারণ করে দীর্ঘ ১৭৯ বছরের পথচলায় সময়ের সাথে শিক্ষার আলো বিতরণের মাধ্যমে যোগ্য নেতৃত্বের গুণাবলিসম্পন্ন মানুষ তৈরির কারখানা হিসেবেই পরিচিত শতবর্ষী এই বিদ্যাপীঠ।

১৮৪১ সালের ২০ নভেম্বর প্রতিষ্ঠার পর থেকেই কলেজটি হয়ে ওঠে পূর্ব বাংলার শিক্ষা বিস্তারের মূল কেন্দ্রবিন্দু। শুধু ঢাকা নগরীই নয় এই উপমহাদেশের বিদ্যারণ্যে প্রবীণ এক বৃক্ষের নাম ‘ঢাকা কলেজ’। ঢাকা কলেজের প্রথম প্রিন্সিপাল নিযুক্ত করা হন কেমব্রীজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ও হিন্দু কলেজের শিক্ষক জে. আয়ারল্যান্ড।

ইতিহাস-ঐতিহ্য ঢাক‌া কলেজ সবসময় অবদান রেখে আসছে। আন্দোলন-সংগ্রামে ঢাকা কলেজ যে অবদান রেখে আসছে তা চির স্মরণীয় হয়ে থাকবে। প্র‌তিষ্ঠাবা‌র্ষিকীকে কেন্দ্র করে প্র‌তিবছর ঢাকা কলেজে জমকালো আয়েজেনের ব্যবস্থা করা হয়। কিন্তু এ বছর করোন‌ার কারণে সামা‌জিক দূরত্ব বজায় রাখতে গিয়ে তা সম্ভব হবে না। তবে ঢাকা কলেজের ছাত্র শিক্ষকরা সমা‌জিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রিয় ক্যাম্পসকে শুভেচ্ছা জানাতে কেউ ভুলে‌নি।

যখনই দুর্যোগ আর অশান্তির মেঘ জমেছে বাংলার বুকে তখনই ঢাক‌া কলেজের ছাত্র শিক্ষক তার সর্বস্ব নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছে রণাঙ্গনে। ১৯৩৯-৪৫ সালের মহাযুদ্ধ, ১৯৪১ সালের দোল দাঙ্গা, ১৯৫২ সালে ‘রক্তে রাঙানো’ ভাষা আন্দোলনে, ১৯৫৩ সালের গোলযোগ, ১৯৫৪ সালের প্রাদেশিক নির্বাচন, ১৯৬২ সালের সামরিক শাসন, ১৯৬৬ সালের ছয় দফা, ’৬৯-এর গণঅভ্যুত্থান, ’৭১-এর মহান মুক্তিযুদ্ধ, ’৯০-এর স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে ঢাকা কলেজের ছাত্ররা ছিল রাজপথে।

ঢাকা কলেজকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক আবদুর রাজ্জাক ১৯৫৮ সালে এক রাজনৈতিক স্মৃতিচারণে লেখেন, ‘সামরিক শাসনের স্টিমরোলার থেকে কিভাবে দেশ ও জাতিকে মুক্ত করা যায় এ ব্যাপারে পথ বের করার জন্য কতদিন যে সন্ধ্যার পর ঢাকা কলেজের মাঠে বসে ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের সঙ্গে গোপনে শলাপরামর্শ করেছি তার কোন ইয়ত্তা নেই। সেদিন আমার সে বিদ্রোহী সত্তা পরবর্তীকালে স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে খড়গহস্ত। বিদ্রোহের এ বীজ আমার মাঝে রোপিত হয়েছে ঢাকা কলেজেই।’

ঢাক‌া কলেজের প্র‌তিষ্ঠা বা‌র্ষিকী নিয়ে অনেক মত পার্ধক্য থাকলেও ১৮৬৬ সালে ঢাকায় কর্মরত জয়েন্ট কালেক্টর আর্থার লয়েড ক্লে’র লেখা ‘Principal Heads of the History and statistics of the Dacca Division’ নামে একটি প্রতিবেদন লেখেন৷ প্রতিবেদনটি ১৮৬৮ সালে গ্রন্থাকারে প্রকাশিত হয়েছিল৷ প্রতিবেদনটিতে ঢাকা কলেজ প্রতিষ্ঠা সম্পর্কে যে তথ্য পাওয়া যায় তা হলো-The COLLEGE OF DACCA Founded by the British Government of India, for the instruction of the native youths of the Estern Districts of Bengal in European literature and Science. The first stone of the edifice is laid by the Right Reverend Daniel,Lord Bishop of Calcutta, and Metropolitan of India.On the 20th day November, A.D. 1841, in the reign of Her most Majesty.

অর্থাৎ এখানে ঢাকা কলেজ প্রতিষ্ঠার তারিখ হিসেবে ২০ নভেম্বরের কথাই উল্লেখ আছে৷ তাই ২০ নভেম্বরকে ঢাকা কলেজের প্র‌তিষ্ঠাবা‌র্ষিকী হিসেবে গণ্য করা হয়।

Sharing is caring!