জবি প্রতিনিধি: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বেদখল হল উদ্ধারের দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারন শিক্ষার্থীরা।মানববন্ধনটি বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর ২০২০) বিকাল ৪.০০ ঘটিকায় শুরু হয়।বিক্ষোভ মিছিলটি জবির প্রধান ফটক থেকে শুরু করে কাঁঠালতলায় গিয়ে শেষ হয়।এই সময় স্লোগান ও প্লেকার্ডে নানা ধরনের দাবি ও চাওয়া তুলে ধরেন।স্লোগানে বলা হয় এই সেলিম তুই হল ছাড়,হল কি তোর বাপ দাদার।দখলদার নিপাত যাক,জবি হল ফিরে পাক সহ নানান স্লোগানে ক্যাম্পাস মুখর করেন।

ঢাকা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের অর্পিত সম্পতি শাখার তথ্য বলছে, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বেদখলে থাকা ১২ টি হলের মাঝে ১ টি তিব্বত হল।যা ঢাকা ৭ আসনের সংসদ হাজী সেলিমের দখলে।২০০১ সালে হলের অবকাঠামো পরিবর্তন করে তার স্ত্রীর নামে রাখেন গুলশান আরা সিটি মার্কেট।বানী ভবন হল,শহীদ আজমল হোসেন হল সহ আরো বেশ কয়েকটি হল বেদখল রয়েছে।

এ বিষয়ে জবি ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক মাহমুদুল হাসান মিশু বলেন,” আগামী এক যুগের মধ্যে নতুন ক্যাম্পাসে হল পাওয়া আর রূপকথার গল্প দুটোই সমার্থক। অথচ হল তো দূরের কথা পর্যাপ্ত পরিমাণ ক্লাসরুমই নেই আমাদের। প্রশাসনের যদি সদিচ্ছা এবং শিক্ষার্থীবান্ধব হয় আমরা মনে করি দ্রুতই হল উদ্ধারে পদক্ষেপ নিবে।হাজী সেলিমের লাঠিয়াল বাহিনীকে যে জবি প্রশাসন ভয় পায়না তার প্রমাণ হবে উদ্ধারের মাধ্যমে এই আশায় আছি।”

এই বিষয়ে সাধারন শিক্ষার্থী নাছিম বলেন,একটি পাবলিক ইউনিভারসিটিতে হল থাকবে এটাই স্বাভাবিক।আমরা এখানে পড়তে আসি কিন্ত এসেই থাকা খাওয়ার জন্য টিউশন সহ পার্ট টাইম জব করতে হয়।হল থাকলে এসব করতে হত না।আমরা হল ফেরত চাই।

Sharing is caring!