শিশু শেখ রাসেলের স্মৃতিচারণ করে আওয়ামী লীগের উদেষ্টা পরিষদের সদস্য সাবেক মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, বঙ্গবন্ধুর জাপান সফরসহ বেশ অনেক অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু যখন ভাষণ দিতেন, রাসেল থাকত আমার সঙ্গে। যখন বঙ্গবন্ধুর বাড়ি যেতাম, রাসেল বলতো তোফা এসেছে।

খুণিরা রাসেলকেও নির্মমভাবে হত্যা করেছে। ষড়যন্ত্রকারী ঘাতকরা চেয়েছিল বঙ্গবন্ধুর পরিবারের কাউকে বাঁচিয়ে রাখবে না। কেউ যেন আর ক্ষমতায় আসতে না পারে। কিন্তু দেশের বাইরে থেকে বেঁচে যাওয়া শেখ হাসিনার হাতে ১৯৮১ সালে আওয়ামী লীগের পতাকা তুলে দিতে পেরেছি বলেই আজ বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচার হয়েছে। বাংলাদেশ আজ বিশ্ব দরবারে আত্মমর্যাদাসীন দেশ। করোনাকালীন সময়ে সঠিক পদক্ষেপ নেয়ায় আন্তর্জাতিকভাবে প্রশংসিত হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ভোলায় আজ রোবার আওয়ামী লীগ আয়োজিত শেখ রাসেলের ৫৭তম জন্মদিন উদযাপনে দোয়া আলোচনা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের অভিষেক অনুষ্ঠানে ভার্চুয়াল সিস্টেমে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন তোফায়েল আহমেদ। পরে জেলা উন্নয়ন সভায়ও তিনি বক্তব্য রাখেন ।

এ সব অনুষ্ঠানে জেলা জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের পাশাপাশি জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ অংশ নেন।

Sharing is caring!