ঢাকা-৫ আসনের উপ-নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগ সাংগঠনিক দক্ষতার প্রমাণ দিয়েছে বলে মনে করেন রাজনীতিবীদরা। কেন্দ্রীয় যুবলীগের নির্দেশনায় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগ নৌকার প্রার্থী বা মনোনয়ন দেয়ার পর থেকে যেভাবে কাজ করেছে, তা কোনো সংগঠনই দেখাতে পারেনি। কেন্দ্রভিত্তিক কমিটি, প্রচারণার জন্য মনিটরিং সেল, নৌকার ভোট নিশ্চিত করনে বিশেষ টিম সহ সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত বা স্বাস্থ্য বিধি মেনে ভোট প্রদান নিশ্চিত করেছে যুবলীগ। এদিকে, আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন দেওয়ার পর থেকেই নৌকার প্রার্থীর পক্ষে কাজ করেছে যুবলীগ। ভোটের প্রচারণা থেকে শুরু করে নির্বাচনের দিন পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়, অভ্যন্তরিন কোন্দলের রেশ ছিল মনুর পক্ষে। কেউ কেউ মনঃক্ষুণ্ন থাকলেও যুবলীগ সাংগঠনিক ও দক্ষতার প্রমাণ দিয়ে জানান দিয়েছে শ্রম, পরিকল্পনা ও শেখ হাসিনার নির্দেশনা বাস্তবায়নে যুবলীগ সেরা।
নির্বাচনের দিন শুরু থেকে ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে, কেন্দ্রে কেন্দ্রে পরিদর্শন করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা। সংগঠনের নেতাকর্মীরা তাকে পেয়ে ব্যাপক চাঙ্গা হয়ে ঘরে বয়স্ক মানুষদের ভোট কেন্দ্রে নিয়ে আসেন। রেজার কঠোর নিদের্শনা ছিল নৌকার ভোটাররা যেন ভোট কেন্দ্রে আসেন। যুবলীগের নেতাকর্মীরাও ঘরে ঘরে গিয়ে ভোটারদের কেন্দ্রে নিয়ে আসেন এবং ভোট প্রদানে সহায়তা করেন।

উল্লেখ্য, ঢাকা-৫ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী কাজী মনিরুল ইসলাম নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৪৫ হাজার ৬৪২ ভোট। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির সালাহউদ্দিন আহম্মেদ ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন দুই হাজার ৯২৬ ভোট।

Sharing is caring!