মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার শরীফপুর ইউনিয়নের চাতলাপুর চা বাগানের একটি নির্মাণাধীন সেপটিক ট্যাংকের গর্তে পড়ে যাওয়া ছাগল উদ্ধার করতে গিয়ে ২ চা শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার বিকালে উপজেলার শরীফপুর ইউনিয়নের চাতলাপুর চা বাগানে এ ঘটনা ঘটে। মৃত্যুর ৪ ঘণ্টা পর দমকল বাহিনীর সদস্যরা লাশ দুটি সেপটিক ট্যাংক থেকে উদ্ধার করে।

কুলাউড়া থানা অফিসার ইনচার্জ ইয়ারদৌস আহমদ এই তথ্য জানান। তিনি জানান, সন্ধ্যায় মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

শরীফপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জুনাব আলী জানান, চা বাগানের রবন বাউরী প্রায় ৬ মাস আগে সেপটিক ট্যাংক করার জন্য এই গর্তটি করেন। কিন্তু গর্তটি ঢাকা না থাকায় শুক্রবার বিকেল ২টায় দিকে ওই গর্তে বাগানের দূর্গাচরণ বাউরীর একটি ছাগল পড়ে যায়। এসময় ছাগলটি উদ্ধারে বাশের মই তৈরি করে নিচে নামেন দুর্গাচরণ বাউরি (৪৫)। অনেকক্ষণ পর তিনি ফিরে না আসলে এবং কোন সাড়া না পেয়ে উপরে থাকা একই এলাকার রাবন বাউরির ছেলে রাজু বাউরি (২৫) কোপে নামেন।

এদিকে রাজু বাউরীও ফিরে না আসায় চা শ্রমিকদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এঘটনায় বাগানবাসী পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসে খবর দেন। বিকেলে ৫টার দিকে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌছে অক্সিজেন নিয়ে ফায়ার ম্যান ফেরদৌস মিয়া গর্তে নেমে লাশ দুটি উদ্ধার করেন।

ফেরদৌস মিয়া জানান, এর আগে আরও একটি ছাগল পড়ে গর্তে প্রচন্ড দূগর্ন্ধ ও গ্যাসের সৃষ্টি হয়েছে এবং সেখানে অক্সিজেনের সংকট রয়েছে।

চাতলাপুর চা বাগানের পঞ্চাত সভাপতি সনত বাউরী জানান, তাদের বাগানের বাউরী টিলায় একটি সেপটিক ট্যাংক করার জন্য ২০/২৫ ফুটের একটি গর্ত করেন রবন বাউরী। এটির কাজ শেষ না হওয়ায় গত ৬ মাস ধরে খোলা পড়ে রয়েছে। এঘটনার পর এটিকে ঢেকে রাখার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

Sharing is caring!