ধর্ষন চেষ্টায় ব্যার্থ হয়ে এক গৃহবধু ও তার পরিবারকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে রাজবাড়ির কালুখালী উপজেলার মদাপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে। গতকাল বুধবার সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এমন অভিযোগ করেন ভুক্তভুগী গৃহবধু স্বপ্না আক্তার।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, তার বাড়ি মদাপুর ইউনিয়নের হাট মদাপুর গ্রামে। তার স্বামী মো: হযরত শেখ ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালামের সাথে আওয়ামী লীগের রাজনীতি করেন। এই সুবাধে চেয়ারম্যান তাদের বাড়ি যাওয়া আসা করতেন। এক সময় চেয়ারম্যানের কুনজর পড়ে আমার উপর। তিনি বিভিন্ন সময়ে গোপনে আমাকে নানা প্রলোভন দেখিয়ে কুপ্রস্তাব দিতে থাকেন। আমি তাতে রাজি না হয়ে বিষয়টি আমার স্বামীকে জানাই। এই কথা শুনে আমার স্বামী চেয়ারম্যানের কাছে জিজ্ঞাস করলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। এক পর্যায়ে চেয়ারম্যান আমার স্বামীকে হুমকি দিয়ে বলেন, ‘যে কোন উপায় হোক তোর বউয়ের সর্বনাশ করবো’।
গত ১৬ মে রাতে আমার স্বামী ও শ্বশুর তারাবির নামাজ পড়তে মসজিদে গেলে চেয়ারম্যান তার লোকজন নিয়ে আমার বাড়িতে আসে। আমি ঘরের বাইরে বের হলেই আমার মুখ, হাত-পা বেধে আমাকে শারীরিক নির্যতন শুরু করে। এক পর্যায়ে আমি কোন ভাবে মুখ খুলে চিৎকার দিলে প্রতিবেশীরা ছুটে আসলে চেয়ারম্যান তার লোকজন নিয়ে পালিয়ে যায়। এই ঘটনার পর আমি হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে আদালতে একটি মামলা দায়ের করি। এরপর থেকে চেয়ারম্যান আমাকে ও আমার পরিবারকে নানাভাবে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছে। তার ভয়ে আজ আমার পুরো পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। এই অবস্থায় ন্যায় বিচারের জন্য প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ যথাযথ কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

Sharing is caring!