ইলিশ উৎপাদনে প্রথম স্থানে বাংলাদেশ

ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ রক্ষায় আজ মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত ২২দিন চাঁদপুরসহ সারাদেশের নদ-নদীতে ইলিশসহ সকল ধরনের মাছ ধরা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে সরকার।

নিষেধাজ্ঞার সময় ইলিশ আহরণ, পরিবহন, বাজারজাতকরণ, মজুত ও ক্রয়-বিক্রয় সম্পন্ন নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। এদিকে চাঁদপুরে ৫১ হাজার ১শ’ ৯০জন জেলে আজ থেকে বেকার হয়ে পড়েছে।

প্রতিবছর আশ্বিনের ভরা পূর্ণিমার আগে-পরে ইলিশের ডিম ছাড়ার আসল সময়। এ সময় সাগর থেকে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ নদীতে ছুটে আসে। এই সময়কে বিবেচনায় নিয়ে প্রতিবছরের ন্যায় এ বছরও মোট ২২ দিন ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ করেছে সরকার। আইন অমান্যকারীকে মৎস্য আইনে সাজা প্রদান করা হবে।

চাঁদপুর জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খান জানান, মা ইলিশ রক্ষায় নদীর তীরবর্তী এলাকায় চেয়ারম্যান মেম্বারসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা এই বিষয়ে আন্তরিক সহযোগিতা করবেন। আর জেলেদের প্রতি আহ্বান, এই নিষেধাজ্ঞার সময় মা ইলিশ রক্ষা করলে জেলেরাই বেশি নদীতে ইলিশ মাছ ধরতে পারবে। এই মাছ জেলেদেরই সম্পদ।

চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর উপজেলার ষাটনল থেকে লক্ষ্মীপুর জেলার চর আলেকজেন্ডার পর্যন্ত ১শ’ কিলোমিটার নদী উপকূলীয় এলাকায় নিষেধাজ্ঞার সময়ে কোন জেলে নদীতে নামতে পারবে না।

এদিকে জেলেরা তাদের জাল নৌকা ডাঙ্গায় তুলে রাখতে শুরু করেছে। তবে কষ্ট হলেও সরকারি নিষেধাজ্ঞা মেনে চলবে বলে জানিয়েছে জেলেরা।

Sharing is caring!