১৫ ও ২১ আগস্টের ষড়যন্ত্রকারীদের অপচেষ্টা আজও চলমান: কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নানা কারণে হাসপাতালের ওপর রোগীদের আস্থার সংকট তৈরি হয়েছে, আশা করব আস্থা ফিরিয়ে আনতে সংশ্লিষ্টরা দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করবেন।

আজ শনিবার (১৮ জুলাই) জাতীয় সংসদ ভবন এলাকায় অবস্থিত সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রীর সরকারি বাসভবন থেকে দেয়া এক ভিডিও বার্তায় এসব কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, সরকার ও শেখ হাসিনার অর্জন গুটি কয়েক ব্যক্তির লোভের কাছে প্রশ্নবিদ্ধ হতে দিতে পারি না। রোগীর অভাবে কোনও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বন্ধ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে বলে গণমাধ্যমে রিপোর্ট আসছে। সংক্রমণে বর্তমানে রোগীর সংখ্যা অনেক। তাছাড়া সাধারণ রোগী তো রয়েছেই। এ প্রেক্ষাপটে হাসপাতাল বন্ধ রাখা সমাধান নয়। আমি বলব, রোগীদের আস্থা ফিরিয়ে আনুন, হাসপাতালমুখী করুন জনগণকে। অনেক বেসরকারি হাসপাতালের ওপর রোগীদের নানান কারণে আস্থার সংকট তৈরি হয়েছে। তাই আশা করব আস্থা ফিরিয়ে আনতে সংশ্লিষ্টরা দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করবেন।

তিনি বলেন, করোনায় দিনরাত সেবা দিয়ে যাচ্ছেন দেশের চিকিৎসক-নার্স মেডিকেল টেকনোলজিস্ট ও চিকিৎসা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। এছাড়া আরও আছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। মানবতার কল্যাণে কাজ করতে গিয়ে সম্মুখ সারির অনেক যোদ্ধা ইতোমধ্যে প্রাণ হারিয়েছেন। আমি সকলের আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি। দেশ ও জাতি আপনাদের এ ত্যাগ চিরদিন শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে। আপনারাই প্রকৃত বীর যোদ্ধা, আপনারা অন্যদের বেঁচে থাকার প্রেরণা।

তিনি আরও বলেন, বন্যার্তদের পাশে দাঁড়াতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতোমধ্যে ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয়কে সরকারিভাবে নেমে পড়ার প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়েছেন। আমাদের দলীয় নেতাকর্মীদের বেসরকারিভাবে এবং স্বেচ্ছাসেবকদের বন্যাদুর্গতদের প্রতি মানবিক সহায়তা নিয়ে এগিয়ে আসার আহ্বান জানাচ্ছি। অনেকে ঢাকায় বসে বক্তৃতা-বিবৃতি দোষারোপের রাজনীতি করছে, তাদের প্রতি অনুরোধ করছি বন্যা দুর্গতদের পাশে দাঁড়াতে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, সরকার গণপরিবহন চলাচল অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, কিন্তু স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদ যাত্রায় প্রত্যেককে নিজের সুরক্ষায় সর্বোচ্চ সর্তক থাকতে হবে। ঈদে গণপরিবহন বন্ধের সুপারিশ ছিল, কিন্তু শেখ হাসিনা সরকার স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার শর্তে গণস্বার্থে গণপরিবহন চলাচলের সুযোগ দিয়েছে। পরিবহন মালিকরা এ সুযোগের সৎ ব্যবহার করবেন এটাই আশা করি।

দলীয় নেতাকর্মীদের বন্যার্তদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে কাদের বলেন, বন্যার্তদের পাশে মানবিক সহায়তা নিয়ে এগিয়ে আসুন। ঢাকা বসে যারা বক্তৃতা বিবৃতি দিচ্ছেন তাদের প্রতি অনুরোধ করবো বন্যা দুর্গতদের পাশে দাঁড়ান।

Sharing is caring!