আনলিমিটেড নিউজঃ রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে করোনাআক্রান্ত দুই পুলিশ রোগীর শরীরে পরীক্ষামূলকভাবে প্লাজমা প্রয়োগ করেছেন সেখানকার চিকিৎসকরা। তাদের মধ্যে একজনের অবস্থা কিছুটা উন্নতির দিকে।

হাসপাতালটির চিকিৎসকরা বলছেন, প্লাজমা থেরাপি দেয়া দুই জনের মধ্যে এক রোগীর বিস্ময়কর উন্নতি লক্ষ্য করা গেছে। অক্সিজেন গ্রহণের ক্ষমতা একদিনেই বেড়েছে ৩০ থেকে ৬০ শতাংশ পর্যন্ত।

কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের পরিচালক ডিআইজি ড.হাসান উল হায়দার বলেন, ‘আমাদের এখানে চিকিৎসাধীন দুজন পুলিশ সদস্যের অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল। তাদের দুজনকেই ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) রাখা হয়েছিল। ঢাকা মেডিক্যালের চিকিৎসকদের মাধ্যমে করোনা থেকে ফিরে আসা দুই ব্যক্তির প্লাজমা সংগ্রহের পর চিকিৎসাধীন ওই দুজন পুলিশ সদস্যের শরীরে প্রয়োগ করা হয়। একজনের অবস্থা উন্নতির দিকে।’

তিনি বলেন, ‘এটাকে এখনও আমরা সাকসেসফুল কেস হিসেবে গণ্য করছি না। কারণ, একজনের অবস্থার উন্নতির মাধ্যমে সফলতা দাবি করা যাবে না। আমরা আরও রোগীর ওপর প্রয়োগ করবো। তখন রোগীর অবস্থা দেখে নিশ্চিত করে বলা যাবে। আমরা এ বিষয়ে আরও কাজ করছি।’

উল্লেখ্য, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) গাইডলাইন অনুযায়ী কোভিড-১৯ এর পরীক্ষামূলক চিকিৎসার তালিকায় বিভিন্ন ওষুধের ব্যবহার ও পদ্ধতির মধ্যে প্লাজমাও রয়েছে। গত ১৮ এপ্রিল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এই প্লাজমা থেরাপির সম্ভাবনা খতিয়ে দেখতে একটি কারিগরি উপকমিটি গঠন করে। কমিটি পরীক্ষামূলক গবেষণার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালকে অনুমতি দিয়েছে।

Sharing is caring!