আনলিমিটেড নিউজ ডেস্কঃ সৌদি আরবে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল এর পক্ষ থেকে শ্রম ও কাউন্সিলর মোঃ আমিনুল ইসলাম করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারী প্রবাসী বাংলাদেশির পূর্ণাঙ্গ পরিচয় প্রকাশ করেছেন।

মৃত ব্যক্তিরা হলেন:

১. কোরবান, পিতা: রেজাউল করিম, মাতা: হালিমা, গ্রাম: সদরপুর পুরান বাড়ি, পোস্ট: নগরকোন্ডা উপজেলা সাভার, জেলা ঢাকা।

২. মোহাম্মদ আফাক হোসেন মোল্লা, পিতা: মোঃ আমজাদ হোসেন, মাতা: মোসাম্মৎ আনোয়ারা খাতুন, গ্রাম: মাসুম দিশা, পোস্ট: রতন গাও, উপজেলা/জেলা: নড়াইল।

৩. মোহাম্মদ হাসান, পিতা: লিয়াকত আলী, মাতা: শামসুন্নাহার, গ্রাম: চোখ ফেরানো, পোস্ট অফিস: বড় হাতিয়া, উপজেলা: লোহাগড়া, জেলা: চট্টগ্রাম।

৪. মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, পিতা: মুজাফফর আহমেদ, মাতা: দিলোয়ারা বেগম, গ্রাম: আজিমপুর, পোস্ট অফিস: চাঁদাহা, উপজেলা: সাতকানিয়া, জেলা: চট্টগ্রাম।

৫. মান্নান মিয়া, পিতা: আজিজুল হক, মাতা: ফুলজান, গ্রাম: মাধবপুর, পোস্ট অফিস উপজেলা: সিংগাইর, জেলা: মানিকগঞ্জ।

৬. মোঃ রহিম উল্লাহ, পিতা: ফয়েজ উল্লাহ, গ্রাম: পালিগ্রাম, পোস্ট অফিস: ইজ্জত নগর, উপজেলা: বাঁশখালী, জেলা: চট্টগ্রাম।

৭. খোকা মিয়া, পিতা: সিরাজ উদ্দিন, মাতা: রহিমা বেগম, গ্রাম: বড়গ্রাম, পোস্ট অফিস: সাতপাড়া, উপজেলা: শিবপুর, জেলা: নরসিংদী।

৮. নাসির উদ্দিন, পিতা : মোকতার আহমেদ, গ্রাম : অউশিয়া, পোস্ট অফিস :দেউদিঘী, থানা সাতকানিয়া জেলা চট্টগ্রাম।

৯. মোহাম্মদ হোসাইন, পিতা : সৈয়দ আহাম্মেদ, থানা : ভোলা সদর, জেলা ভোলা ।

১০. আব্দুল মোতালেব, পিতা : আব্দুল জলিল, পাবনা।

উপরে উল্লেখিত মৃত প্রবাসী বাংলাদেশিরা গত ২৪ মার্চ থেকে ৭ এপ্রিলের মধ্যে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। যদিও করোনাভাইরাসে সৌদি আরবে এ পর্যন্ত ৯ জন প্রবাসী বাংলাদেশি মৃত্যুবরণ করেছেন বলে জানা গেছে কিন্তু জেদ্দা কনস্যুলেট প্রকাশ করেছে ৭ জনের নাম আর দুই জন রিয়াদ দূতাবাস থেকে নিশ্চিত করেছেন গতকাল পর্যন্ত ৯ প্রবাসী বাংলাদেশির মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে করোনা ভাইরাসের কারণে বিদেশে অবস্থানরত ক্ষতিগ্রস্ত প্রবাসী বাংলাদেশিদের আর্থিকভাবে সহযোগিতা করার জন্য বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে সৌদি আরবে কর্মরত ২২ লক্ষ প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য ৮০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে।

যা চাহিদার তুলনায় খুবই অপ্রতুল বলে মনে করছেন সৌদি প্রবাসীর স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে কাজ করা অন্যতম সংগঠন প্রবাসী সংযোগগুলি। প্রবাসী মধ্যবিত্ত পরিবারগুলো এখন কঠিন সংকটের মধ্যে আছে তাদেরকে কারোনা সংকট মোকাবেলায় সহজ শর্তে বিনা সুদে কমপক্ষে তিন লাখ টাকা করে ব্যাংক থেকে ঋণ প্রদান করার জন্য প্রবাসী কমিউনিটির সংযোগগুলি দাবি জানান।

ইতোমধ্যে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে বাংলাদেশ সরকারকে প্রবাসীদের সহযোগিতার জন্য কমপক্ষে এক হাজার কোটি টাকা প্রণোদনার জন্য আবেদন জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে প্রবাসীদের সহায়তা কথা প্রকাশ পাওয়ার পর রিয়াদের বাংলাদেশ দূতাবাস এবং জেদ্দার বাংলাদেশ কনস্যুলেট এর পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত প্রবাসীদের উদ্দেশ্যে এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে দূতাবাস ও কনস্যুলেটের নির্ধারিত টেলিফোন টোল ফ্রি নাম্বার এবং ই-মেইলে যোগাযোগ করার আহ্বান জানানোর পর গত তিন দিনে কমপক্ষে পাঁচ হাজারেরও বেশি প্রবাসী বাংলাদেশি কনস্যুলেট ও দূতাবাসে যোগাযোগ করেছে বলে সূত্র জানিয়েছে।

যে হারে ক্ষতিগ্রস্ত প্রবাসীরা আর্থিক সাহায্যের জন্য আবেদন জানাচ্ছে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে এর সংখ্যা কয়েক লাখ ছাড়িয়ে যাবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

Sharing is caring!