ঢাকা, ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০: উন্নত জাতি গঠনে ও সমাজে বিশৃঙ্খলা এড়াতে গণমাধ্যমে শৃঙ্খলা বজায় রাখতে সকলকে সহযোগিতার আহ্বান জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর তোপখানা রোডে বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল মিলনায়তনে ‘১৪ ফেব্রুয়ারি প্রেস কাউন্সিল দিবস’ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহবান জানিয়ে বলেন, ‘সবার আগে সর্বশেষ সংবাদ পরিবেশনের প্রতিযোগিতা করতে গিয়ে দেখা যাচ্ছে, অনেক অসত্য ও ভুল সংবাদ পরিবেশিত হয়, যেগুলো অনেক সময় মানুষের ব্যক্তিস্বাধীনতার ওপর হস্তক্ষেপ, রাষ্ট্রের জন্য হুমকি ও সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির কারণ। এবিষয়ে প্রেস কাউন্সিলের যেমন দায়িত্ব রয়েছে, তেমনি প্রয়োজন গণমাধ্যমের সকলের সহযোগিতা।’

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘ন্যায়ভিত্তিক ও বিতর্কভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় মতপ্রকাশের স্বাধীনতা যেমন থাকতে হবে, তেমনি সে স্বাধীনতা যেন অন্যের স্বাধীনতা কিংবা অধিকারে অযাচিত হস্তক্ষেপ না হয় সেদিকেও গণমাধ্যমকর্মীদের লক্ষ্য রাখতে হবে। কারণ সমাজে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা যেমন আবশ্যকীয়, তেমনি অন্যের মৌলিক স্বাধীনতা সুরক্ষার নিশ্চয়তার বিধানও সমাজে থাকা প্রয়োজন।’

বাংলাদেশে গত এগারো বছরে সংবাদপত্র, টেলিভিশন, বেতার, অনলাইন গণমাধ্যমের যুগান্তকারী বিকাশ ও সজীবতার কথা উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, গত এগারো বছরে গণমাধ্যমের ক্যানভাসটাই অনেক প্রসারিত হয়েছে। একইসাথে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যে কোনো গণমাধ্যম নয়, এটি শুধু মতপ্রকাশের অসম্পাদিত ক্ষেত্র, তা স্মরণ করিয়ে দেন মন্ত্রী।

এসময় তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু যখন ১৯৭৪ সালে সদ্য স্বাধীন দেশে প্রেস কাউন্সিল আইন প্রণয়ন করেন, তখনও অনেক দেশে এবিষয়ে আইন প্রণীত হয়নি। জাতির পিতা সাড়ে তিন বছরের মধ্যে এমন অনেক আইন
করেছিলেন, যা জাতির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আমরা সমুদ্রসীমা জয় করতে পারতাম না যদি বঙ্গবন্ধু তার আমলে দেশকে আনক্লজ (UNCLOS-United Nations Convention on the Law of the Sea) এর সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত না করতেন। আমাদের তেল-গ্যাসক্ষেত্রগুলোর মালিকানাও বঙ্গবন্ধু প্রণীত আইনের কারণেই বিদেশি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে আমরা নিতে পেরেছি।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী মুজিববর্ষ প্রায় সমাগত। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ অনেক এগিয়ে গেছে, মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে। আমরা উন্নত রাষ্ট্রের পাশাপাশি উন্নত জাতি হিসেবে নিজেদের গড়ে তুলতে চাই। আর জাতির বিকাশের জন্য তথ্যের অবাধ প্রবাহ ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতা একান্ত সহায়ক। একটি ন্যায়ভিত্তিক, বিতর্কভিত্তিক সমাজ গড়তে এর বিকল্প নেই।’

প্রেস কাউন্সিল চেয়ারম্যান বিচারপতি মোঃ মমতাজ উদ্দীন আহম্মদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন তথ্যসচিব কামরুন নাহার। আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে যোগ দেন ডিবিসি২৪ টিভি চ্যানেলের চেয়ারম্যান ইকবাল সোবহান চৌধুরী, দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজাম, সাংবাদিক সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা প্রমুখ।

Sharing is caring!