আনলিমিটেড নিউজঃ বিপিএলে সিলেট থান্ডার দলটা ব্যর্থ প্রমাণিত হয়েছিল আগেই। বলতে গেলে বিপিএলের মাঝ পথেই আসর থেকে ছিটকে যাওয়া একরকম নিশ্চিত হয়ে যায় তাদের। মঙ্গলবার কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষে নিজেদের শেষ ম্যাচ খেলতে নেমেও স্মরণীয় কোনো কিছুর ছাপ রাখতে পারল না দলটা। সিলেটকে সব মিলে ১১তম হারের স্বাদ দিল কুমিল্লা। আর এই জয়ে প্লে-অফ খেলার আশা বেঁচে থাকল সৌম্য সরকারদের।

 

 

 

 

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে এদিন ৫ উইকেটের জয় তুলে নেয় কুমিল্লা। ১৪২ রানের ছোট্ট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে কুমিল্লা একপর্যায়ে বেশ চাপেই পড়ে যায়। ১০ ওভারে ৩ উইকেটে হারিয়ে মাত্র ৪৭ রান তুললে পেরেছিল দলটা। সেখান থেকে ডেভিড মালান ও সৌম্য সরকারের ফিফটিতে কুমিল্লার জয় নিশ্চিত হয়। অধিনায়ক মালান সর্বোচ্চ ৫৮ রান করেন। সৌম্য অপরাজিত থেকে যান ৫৩ রানে।

 

 

 

১০ ম্যাচে ৫ জয়ে ১০ পয়েন্ট কুমিল্লার। আরো দুই ম্যাচ বাকি তাদের। শেষ চার নিশ্চিত করতে অবশ্য তাদের শুধু নিজেদের ম্যাচ নয়, তাকিয়ে থাকতে হবে অন্যদের দিকেও। কারণ তাদের চেয়ে এক ম্যাচ কম খেলে ঢাকা প্লাটুনের পয়েন্ট ১২। ওদিকে খুলনার এক ম্যাচ কম খেলে কুমিল্লার সমান পয়েন্ট। এরই মধ্যে রাজশাহী ও চট্টগ্রাম শেষ চার নিশ্চিত করে ফেলেছে। বাকি দুই দলের জন্য এখন অন্যদের জমাট লড়াই।

 

 

 

টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে সিলেট পারেনি নিজেদের স্কোরটা বড় করতে। যে জন্য দায়ী অবশ্যই আন্দ্রে ফ্লেচার, আব্দুল মজিদের ধীর শুরু। নির্ধারিত ওভারে ৫ উইকেটে ১৪১ রানের বেশি সংগ্রহ পায়নি সিলেট। ৪০ বল খেলে সর্বোচ্চ ৪৫ রান করেন ওপেনার আব্দুল মজিদ। অন্যদের মধ্যে জনসন চার্লস ২৬, জিভান মেন্ডিস ২৩, ফ্লেচার ২২, মিঠুন ১৮ রান করেন। কুমিল্লার বোলারদের মধ্যে দুটি করে উইকেট নেন আল-আমিন হোসেন ও ডেভিড উইজ।