আনলিমিটেড নিউজঃ যুবলীগের আরো ৭জন বিতর্কিত নেতাকে বাদ দেওয়ার জন্য আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার কাছে দেওয়া হয়েছে। ২৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিত কংগ্রেস থেকে যেন তারা দূরে থাকে সেজন্য সুপারিশ করা হয়েছে।সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানাচ্ছে, গোয়েন্দা সংস্থা এই সাতজনকে বিতর্কিত হিসাবে চিহ্নিত করেছে। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ এরা সম্রাটের সহযোগি। টেন্ডার বাণিজ্য, কমিশন বাণিজ্যসহ নানা রকম অপকর্মের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা থাকার অভিযোগ তাদের বিরুদ্ধে রয়েছে বলে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো জানিয়েছে। সূত্র, বাংলা ইনসাইডার

 

 

 

এই ৭জনের তালিকা আওয়ামী লীগ সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রীর কাছে দেওয়া হয়েছে। এই সাতজনের মধ্যে রয়েছে ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের সহ সভাপতি সোহরাব হোসেন স্বপন, ঢাকা দক্ষিণের আরেক সহ সভাপতি সরওয়ার হোসেন মনা, সহ সভাপতি মোরসালিন আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মাকসুদুর রহমান মাকসুদ এবং সরওয়ার হোসেন বাবু।

 

 

 

এদের বিরুদ্ধে অভিযোগ হলো এরা সম্রাটের ঘনিষ্ঠ ছিলেন এবং সম্রাটের ক্যা’সিনো ব্যবসার সঙ্গে আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা এদের সংশ্লিষ্টতা পেয়েছে বলে জানা গেছে। এছাড়াও কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম। যার বিরুদ্ধে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে টেন্ডারবা’জির অভিযোগ রয়েছে। সহ সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন, তার বিরুদ্ধেও টেন্ডারবা’জির অভিযোগ রয়েছে।

 

 

 

সূত্রগুলো বলছে আওয়ামী লীগ সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চূড়ান্ত সম্মতির ভিত্তিতে এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে আওয়ামী লীগের শুদ্ধি অভিযানের আওতায় এরা যেন কাউন্সিলে থাকতে না পারে সেজন্য উদ্যোগ নেওয়া হবে। তবে আওয়ামী লীগের একটি সূত্র বলছে, যাদেরকে বিতর্কিত বলা হচ্ছে তারা সত্যিই বিতর্কিত কিনা সে ব্যাপারে আওয়ামী লীগ নিজস্ব উদ্যোগে তদন্ত করবে এবং তথ্য যাচাই বাছাই করবে। তারপরই তারা সিদ্ধান্ত নেবে।