আনলিমিটেড নিউজঃ বিশ্বকাপ ২০২২ ও এশিয়ান কাপ ২০২৩ বাছাইয়ে ওমানের বিপক্ষে অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। বাছাইয়ের দ্বিতীয় রাউন্ডে ‘ই’ গ্রুপে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে আগামী ১৪ নভেম্বর ওমানের মুখোমুখি হবে কোচ জেমি ডে’র শিষ্যরা। স্বাগতিক ওমানের মুখোমুখি হওয়ার আগে স্থানীয় লিগের দল মাসকট ক্লাবের বিপক্ষে একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে নামে জামাল ভূঁইয়ারা।

 

 

 

২০২২ কাতার বিশ্বকাপ ও ২০২৩ সালের এশিয়ান কাপের বাছাইয়ে নামার আগে বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) মাসকট ক্লাবের মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ। ম্যাচে ৩-১ গোলের ব্যবধানে জিতেছে লাল-সবুজের দলটি।

 

 

 

ওমানের লিগে গত মৌসুমে ১৪ দলের মধ্যে নবম হয়েছিল মাসকট। দ্বাদশ মিনিটে নাবীব নেওয়াজ জীবনের গোলে লিড নেয় বাংলাদেশ। ১৭ মিনিটের মাথায় পেনাল্টি থেকে সমতা ফেরায় স্বাগতিকরা। ২৮তম মিনিটে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে গোল করেন মিডফিল্ডার বিপলু আহমেদ। বিরতির পর ৬৫তম মিনিটে তৌহিদুল আলম সবুজ ব্যবধান বাড়ান। ৩-১ ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে জেমি ডে’র শিষ্যরা।

 

 

 

এই ম্যাচটি ছিল বাংলাদেশের জন্য পরীক্ষা-নিরিক্ষার ম্যাচ। কোচের সেরা একাদশ সাজাতেও এই ম্যাচ কাজে দেবে। মাসকটের বিপক্ষে নিজের শিষ্যদের শেষবারের মতো পরখ করে নিতে চেয়েছিলেন বাংলাদেশ কোচ জেমি ডে।

 

 

 

ওমানের আল সিব স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ দল আগামী ১৪ নভেম্বর বিশ্বকাপ বাছাইয়ের চতুর্থ ম্যাচটি খেলবে। নিজ দেশ যুক্তরাষ্ট্রে ছুটি কাটানো কোচ জেমি ডে দলের সঙ্গে যোগ দেন। পাশাপাশি অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া স্পেন থেকে রওনা দেন। লা লিগার ম্যাচে ধারাভাষ্য দিতে তিনি স্পেন পাড়ি দিয়েছিলেন।

 

 

 

বাংলাদেশ সর্বশেষ বাছাইপর্বের ম্যাচে র্যাং কিংয়ের বিচারে শক্তিশালী ভারতের বিপক্ষে তাদেরই মাটিতে জয়ের সমান ড্র করে। এর আগে আফগানিস্তান ও ২০২২ বিশ্বকাপের আয়োজক কাতারের বিপক্ষে লড়াই করে হারে। ‘ই’ গ্রুপের তিন ম্যাচের দুটিতে জিতে ও ১টিতে হেরে ৬ পয়েন্ট নিয়ে ওমান রয়েছে দ্বিতীয় স্থানে। তিন ম্যাচের দুটিতে হেরে ও ১টিতে ড্র করে বাংলাদেশ রয়েছে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে।

 

 

 

২৩ সদস্যের বাংলাদেশ দল:
গোলরক্ষক: আশরাফুল ইসলাম রানা, শহীদুল আলম সোহেল ও আনিসুর রহমান।
ডিফেন্ডার: টুটুল হোসেন বাদশা, বিশ্বনাথ ঘোষ, ইয়াসিন খান, রহমত মিয়া, রিয়াদুল হাসান, ইয়াসিন আরাফাত ও রায়হান হাসান।
মিডফিল্ডার: সোহেল রানা, জামাল ভূঁইয়া, রবিউল হাসান, মামুনুল ইসলাম, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, বিপলু আহমেদ ও সাদ উদ্দিন।
ফরোয়ার্ড: নাবীব নেওয়াজ জীবন, মাহবুবুর রহমান সুফিল, মতিন মিয়া, আরিফুর রহমান, তৌহিদুল আলম সবুজ ও রাকিব হোসেন।