আনলিমিটেড নিউজঃ সরকারি স্টিকার লাগানো মাইক্রোবাস তল্লাশি করে সাড়ে ৫৪ লাখ টাকাসহ তক্ষক চোরাচালান চক্রের দুইজনকে আটক করেছে যশোর ডিবি পুলিশ। বুধবার সন্ধ্যায় যশোর-বেনাপোল সড়কের চাঁচড়া মোড় থেকে তাদের আটক করা হয়।

 

 

 

আটকতরা হলেন, নওগাঁর বদলগাছি উপজেলার বলরামপুর গ্রামের কাজী মোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে কাজী মাসুদ পারভেজ এবং গোপালগঞ্জের মুকসুুদপুর উপজেলার আইকাদিয়া গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে রেজাউল ইসলাম। একই সঙ্গে আটক করা হয়েছে গাড়ি চালক আবুল খায়েরকে। তার বাড়ি কুমিল্লার দেবিদ্বারপুর উপজেলার বড়ুরা গ্রামে।

 

 

 

যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম জানিয়েছেন, সরকারি স্টিকার লাগানো একটি গাড়িতে মাদক বহন করা হচ্ছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে ডিবির একটি টিম মাইক্রোবাসটি (ঢাকা মেট্টো-চ-১৬-৬৮৭০) থামিয়ে তল্লাশি চালায়। ওই গাড়ি থেকে মাদক উদ্ধার না হলেও পাওয়া যায় ৫৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

 

 

 

জিজ্ঞাসাবাদে আটক রেজাউল ইসলাম ও মাসুদ পারভেজ তক্ষক কেনাবেচার মধ্যস্থতাকারী বলে স্বীকার করেন। তারা জানান, ঢাকা থেকে মাইক্রেবাসটি ৮ হাজার টাকায় ভাড়া নিয়ে যশোরের শার্শা উপজেলার বাগআঁচড়া বাজারের পাশের একটি বাড়িতে যান। সেখানে তক্ষকের একটি ছোট হাড় কেনাবেচা হয় এক কোটি টাকায়। তারা সেকেন্ড পার্টি। প্রথম পার্টি ৪৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা নেয়। আর আমরা নিই ৫৪ হাজার ৫০ হাজার টাকা। এ টাকা নিয়ে ঢাকায় যাওয়া হচ্ছিল।

 

 

 

 

আাটকদের মধ্যে মাসুদ পারভেজ আইটির ব্যবসা করেন। ঢাকার শ্যামলীতে স্মার্ট আইটি নামে একটি প্রতিষ্ঠান আছে। আর রেজাউল ইসলাম হাউজ বিল্ডিং ঠিকাদার। তিনিও ঢাকায় থাকেন।