ফ্রাঙ্কফুর্ট, জার্মানি (১৭ অক্টোবর, ২০১৯): সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি গতকাল ১৬ অক্টোবর বুধবার সকালে পাঁচ দিনব্যাপী (১৬-২০ অক্টোবর ২০১৯) ৭১তম ফ্রাঙ্কফুর্ট আন্তর্জাতিক বইমেলা ২০১৯-এ বাংলাদেশ স্টলের উদ্বোধন করেন।

 

 

 

প্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে ১০ (দশ) সদস্য বিশিষ্ট বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের সদস্যবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

 

 

একইদিন (১৬ অক্টোবর) সকালে প্রতিমন্ত্রী ফ্রাঙ্কফুর্ট আন্তর্জাতিক বইমেলার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা Juergen Boos এর সঙ্গে এক বৈঠকে মিলিত হন। বৈঠকে বাংলাদেশ প্রতিনিধিবৃন্দ আগামী বছর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী বাংলাদেশে যথাযোগ্য রাষ্ট্রীয় মর্যাদা ও সম্মানের সঙ্গে পালিত হবে বলে ফ্রাঙ্কফুর্ট বইমেলা কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেন। বইমেলা কর্তৃপক্ষ নীতিগতভাবে একমত হন যে মহান রাজনীতিবিদ ও লেখক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবন ও গুরুত্বপূর্ণ কর্মকাণ্ড আগামী বছর অনুষ্ঠিতব্য ফ্রাঙ্কফুর্ট আন্তর্জাতিক বইমেলায় বিশেষ গুরুত্বের সঙ্গে তুলে ধরা হবে। একইসঙ্গে তাঁরা বঙ্গবন্ধু ও তাঁকে নিয়ে রচিত বইসমূহের অনুবাদের আগ্রহ প্রকাশ করেন। তাছাড়া মেলা কর্তৃপক্ষ আগামী ফ্রাঙ্কফুর্ট বইমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতি কামনা করেন।

 

 

 

একইদিন প্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদল IPA (International Publishers Association) এর প্রেসিডেন্ট Hugo Setzer এর সঙ্গে অন্য এক বৈঠকে মিলিত হন। প্রতিমন্ত্রী আগামী বছর ঢাকায় অনুষ্ঠিতব্য বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বইমেলা ২০২০ এর ব্যাপারে IPA প্রেসিডেন্টকে অবহিত করেন এবং এ বইমেলা সফল করার লক্ষ্যে তাঁর সর্বাত্মক সহযোগিতা কামনা করেন। Hugo Setzer এসময় প্রতিমন্ত্রীকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন।

 

 

বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের অন্য সদস্যবৃন্দ হলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাদুঘরের কিউরেটর মো. নজরুল ইসলাম খান, বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী, সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রীর একান্ত সচিব মো. কামরুল হাসান, জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রের পরিচালক কবি মিনার মনসুর, বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতির সভাপতি ফরিদ আহমেদ, বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতির সহসভাপতি খান মাহবুবুল আলম, বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশনা ও বিক্রেতা সমিতির সভাপতি মো. আরিফ হোসেন এবং বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতির সদস্য এস এম খোরশেদ আলম।

 

 

 

উল্লেখ্য, এবারের ফ্রাঙ্কফুর্ট আন্তর্জাতিক বইমেলায় বিভিন্ন দেশের সাহিত্য, সংস্কৃতি এবং বই ব্যবসার সমস্যা আর তার সমাধান নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে চার হাজারেরও বেশি ইভেন্ট। চার মিলিয়ন বর্গফুট জায়গার ওপর অনুষ্ঠিত এ বইমেলায় অংশগ্রহণকারী দর্শনার্থীর সংখ্যা ২,৮০,০০০ ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা করা যাচ্ছে। এছাড়া বইমেলার সংবাদ সংগ্রহ ও মেলার প্রচার কাজে যোগদান করতে মেলা প্রাঙ্গণে ১০,০০০ এর বেশী দেশি-বিদেশি সাংবাদিকের সমাগম ঘটবে বলে আশা করা যাচ্ছে।