ঢাকা (২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯): সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি বলেছেন, পৃথিবীর বেশিরভাগ দেশেই সংস্কৃতি ও পর্যটন একই মন্ত্রণালয়ের আওতাভুক্ত। এতে কার্যক্রম বেগবান হয় ও সমন্বয় সহজতর হয়। কেননা, পর্যটকরা সাধারণত একটি দেশের প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন ও ঐতিহ্য ঘুরেফিরে দেখতে চায় যা সংস্কৃতির অন্তর্গত। অন্যদিকে, চলচ্চিত্র একটি দেশের সংস্কৃতির অন্যতম অনুষঙ্গ। সেজন্য পর্যটন ও চলচ্চিত্র সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সাথে একীভূত হওয়া উচিত।

 

 

 

প্রতিমন্ত্রী আজ সকালে রাজধানীর লালবাগ কেল্লা জাদুঘর এর হলরুমে প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর আয়োজিত “প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের কার্যাবলিসহ সার্বিক বিষয়াদি: প্রেক্ষিত পরিকল্পনা” শীর্ষক দুই দিনব্যাপী কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

 

 

 

প্রধান অতিথি বলেন, দক্ষ জনবল গড়ে তুলতে প্রশিক্ষণ ও গবেষণার বিকল্প নেই। তিনি বলেন, আজকের এ কর্মশালা থেকে প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের উন্নয়নে যেসব প্রস্তাব ও সুপারিশ বের হয়ে আসবে, মন্ত্রণালয় সেগুলো বাস্তবায়নে সর্বাত্মক পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। প্রতিমন্ত্রী এসময় মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, আপনাদের মেধা, যোগ্যতা ও দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়কে একটি যুগোপযোগী ও আধুনিক মন্ত্রণালয় হিসেবে গড়ে তুলুন।

 

 

 

প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. হান্নান মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মো. আবু হেনা মোস্তফা কামাল এনডিসি।

 

 

 

কর্মশালায় সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

 

 

 

পরে প্রতিমন্ত্রী রাজধানীর বলাকা সিনেওয়ার্ল্ডে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বেঙ্গল মিডিয়া কর্পোরেশন লিমিটেড (আরটিভি) প্রযোজিত “সাপলুডু” চলচ্চিত্রের প্রিমিয়ার শো উপভোগ করেন।

Sharing is caring!