মেয়রের সামনে সাংবাদিকদের উপর বিএনপি নেতা কেন ক্ষিপ্ত হলেন!

আনলিমিটেড নিউজ ডেস্ক: গণমাধ্যমকর্মী বা সাংবাদিক আমাদের রাষ্ট্রের চতুর্থ সম্মানিত ব্যক্তি। জাতির কল্যাণে সত্য ও সাহসিকতায় যারা নিবেদিত। তাদের কেন রক্তচক্ষু বা দুর্ব্যবহারের শিকার হতে হচ্ছে।

 

 

বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকারের ব্যাপক উন্নয়নমূলোক কাজে বাংলাদেশ যখন দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে তখন কিছু সুবিধাবাদি বা অযোগ্য ব্যক্তির কারনেই যতো প্রশ্নের মুখোমুখি বা বিতর্কের সামনে দাঁড়াতে হচ্ছে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরকারকে।

 

 

গতকাল ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের বাজেট কেন্দ্রীক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকের প্রশ্ন শুনেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন কয়েকজন কাউন্সিলর। অবস্থা এমন পর্যায় চলে যায় যে মেয়র সাঈদ খোকনকে বাধ্য হয়েই ধমকিয়ে কাউন্সিলদের শান্ত করতে হয়।

 

 

আর এ ঘটনায় যে কাউন্সিল সবার আগে সাংবাদিকের উপর চড়াও হন তিনি হচ্ছেন মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি ও সবুজবাগ থানা বিএনপির সভাপতি এবং ৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর। মেয়র তাকে বারবার থামতে বললেও কেন তিনি বিষটি বড় করতে চাচ্ছিলেন?

 

 

কেন ক্ষিপ্ত হচ্ছিলেন সাংবাদিকদের উপর? অভিভাবক হিসেবে মেয়র উপস্থিত তখন কেন কাউন্সিলরা তাকে প্রশ্নবিদ্ধ করলেন?

 

 

মেয়র যেমন কষ্ট পেয়েছেন, তেমনি সাংবাদিক সমাজ আহত হয়েছেন এ ঘটনায়।

 

 

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর গোলাম হোসেন এলাকায় পরিচ্ছন্নকর্মীদের নিয়ে ডেঙ্গু প্রতিরোধে তেমন কোন কাজে আগ্রহি হননি, স্থানীয় সংসদ সদস্যের কঠোর নিদের্শনায় আওয়ামী লীগ নেতারই মশক নিধনে মাঠে নেমে কাজ করেছেন। সম্প্রতি কোরবানির ঈদেও বজ্য সমস্যা সমাধানে যারা কোরবানি দেবেন তাদের সিটি কর্পোরেশন থেকে বজ্য অপসারণে ব্যাগ ও পাউডার দেয়া হলেও ৪ নং ওয়ার্ডে এ সুবিধা অনেকে পায়নি।