আনলিমিটেড নিউজ ডেস্ক: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে মিথ্যা তথ্য দিয়ে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ থেকে প্রিয়া সাহাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।

 

সোমবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের স্থায়ী কমিটির এক জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

 

বিষয়টি নিশ্চিত করেন ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাশগুপ্ত।

 

তিনি বলেন, ‘আজ সন্ধ্যায় স্থায়ী কমিটির এক জরুরি সভায় সংগঠনের শৃঙ্খলাবিরোধী কাজের জন্য প্রিয়া সাহাকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করেছি। তাকে সব সাংগঠনিক দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। এই সিদ্ধান্ত অনতিবিলম্বে কার্যকর হবে।’

 

২৪ জুলাই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রিয়া সাহা বিষয়ে তাদের অবস্থানও পরিষ্কার করা হবে বলেও জানান রানা দাশগুপ্ত।

 

 

তিনি আরও বলেন, ‘এ সিদ্ধান্ত তো নেয়া হয়েছে সাময়িক। এ সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করতে হলে তাকে শোকজ ছাড়া এবং আরও পদক্ষেপ গ্রহণ করা ছাড়া সম্ভব নয়। এটা আমাদের গঠনতন্ত্রের অনুকূলেই করেছি।’

 

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে প্রিয়া সাহা বলেছিলেন, ‘আমি বাংলাদেশ থেকে এসেছি। সেখানে ৩৭ মিলিয়ন (৩ কোটি ৭০ লাখ) হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান উধাও হয়ে গেছে। এখনও সেখানে ১৮ মিলিয়ন (১ কোটি ৮০ লাখ) সংখ্যালঘু জনগণ রয়েছে। দয়া করে আমাদের সাহায্য করুন। আমরা আমাদের দেশ ত্যাগ করতে চাই না। আমি আমার ঘর হারিয়েছি, আমার জমি নিয়ে গেছে। আমার ঘরবাড়িতে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে। কিন্তু সেসবের কোনো বিচার নাই।’

 

প্রিয়া সাহাকে ট্রাম্প জিজ্ঞাসা করেছেন, এসব কারা করছে? জবাবে প্রিয়া সাহা বলেন, ‘উগ্রবাদী মুসলিমরা এই কাজ করছে। সবসময় তারা রাজনৈতিক প্রশ্রয়ে এই কাজ করে।’

 

প্রিয়া সাহার এমন বক্তব্যের পর ব্যাপক সমালোচনা শুরু হওয়ায় এমন সিদ্ধান্ত নিল সংগঠনটি।